কিউবা সংকট কী? কীভাবে তার সমাধান হয়?

উত্তর : একদা স্পেনীয় উপনিবেশ দক্ষিণ আমেরিকার মূল ভূ-খণ্ড থেকে অদূরে অবস্থিত কিউবা দ্বীপ নামে স্বাধীন হলেও (১৮৯৮) কার্যত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক উপনিবেশে পরিণত হয়েছিল। এখানকার চিনি, তামাক ও অন্যান্য ধাতু শিল্পের মালিকানা ছিল আমেরিকানদের। শােষণে জর্জরিত কিউবার সাধারণ মানুষ ছিল চরম বিক্ষুব্ধ। তখন বা তিস্তা (Fulgencio Batista) দেশের অকর্মণ্য প্রজাতন্ত্রী সরকারকে উৎখাত করে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেন (১৯৫২ খ্রিঃ)। কিন্তু তিনিও পূর্বসূরীদের পথেই চলেন। কিউবা একই অবস্থায় থাকে।

১৯৫৭ খ্রিস্টাব্দে আর্জেন্টিনার সহযােদ্ধা চে-গুয়েভারার সাহায্যে ফিদেল কাস্ত্রো কিউবার ক্ষমতা দখল করেন। মার্কিন মালিকানাধীন শিল্প-কারখানার জাতীয়করণ শুরু করলে বিরােধ শুরু হয়। মার্কিন উদ্যোগে বাতিস্তাকে প্রতিষ্ঠার জন্য অভিযান শুরু হয়। কিন্তু তা ব্যর্থ হয়। তখন সােভিয়েত ইউনিয়ন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিকটবর্তী, পশ্চিম গােলার্ধে র এই দেশটিকে কমিউনিষ্ট ঘাঁটিতে পরিণত করার জন্য আর্থিক ও সামরিক (ক্ষেপণাস্ত্র, আণবিক কেন্দ্র) সাহায্য দানে অগ্রসর হয়। কিউবা ঠান্ডা যুদ্ধের কেন্দ্রে পরিণত হয়। কিউবায় ক্ষেপণাস্ত্র ঘাঁটি নির্মাণ শুরু হলে ও ক্ষেপণাস্ত্র পৌঁছানাের কাজ শুরু হলে (১৯৬২ খ্রিঃ) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কিউবার বিরুদ্ধে নৌ অবরােধ করে রুশ জাহাজ তল্লাশি করার ঘােষণা করে। প্রতিক্রিয়ায় কুশ্চেভ সােভিয়েত নৌবহর পাঠালেও তা অবরােধ সীমার বাইরে থাকে। এই অবস্থায় রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব উ-থান্ট দুই পক্ষকে সহিষ্ণু হবার আবেদন জানান এবং ব্রুশ্চেভ ও কেনেডির মধ্যস্থতা করেন। স্থির হয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কিউবা আক্রমণ করবে না। সােভিয়েত ইউনিয়ন কিউবার ঘাঁটি ভেঙে দেবে এবং ক্ষেপণাস্ত্রগুলি ফিরিয়ে নেবে। এভাবে কিউবা সংকট মিটে যায়।

Leave a Reply